হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ইউএনও মাসুদ রানা ঈদের দিন বাসায় ছুটির আরাম আয়েশ না করে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে বানভাসীদের কাছে ছুটে গেলেন।

সঙ্গে নিয়ে গেলেন নিজের বাসায় কোরবানি দেওয়া গরুর মাংস, শিশুদের জন্য খেল না। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নিয়ে গেলেন ত্রাণ সহায়তা ও শিশুদের জন্য গুঁড়োদুধ।

এ সময় ইউএনও বিভিন্ন বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রের মানুষের বিভিন্ন সমস্যা মনোযোগ সহকারে শুনেন এবং সমস্যা সমাধানেরও আশ্বাস প্রদান করেছেন।

জুলাই মাসের মাঝামাঝি থেকে বানিয়াচং উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের কয়েকশ নিচু বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে গেছে।

যে কারণে কিছু মানুষ বিভিন্ন বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র ও বিদ্যালয়ে আশ্রয় গ্রহণ করেছেন। এদেরকে ইতিমধ্যে সরকারিভাবে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

উপজেলা পর্যায়ে প্রশাসনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের কর্তাব্যক্তি হলেন- উপজেলা নির্বাহী অফিসার। করোনাভাইরাস শুরু হওয়ার পর থেকে মাঠ পর্যায়ে ইউএনওদের কর্মব্যস্ততাও বেড়ে গেছে।

সেই হিসেবে বানিয়াচংয়ের উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঈদের ছুটি কাজে লাগাতে বিশ্রামের জন্য সদ্ব্যবহার না করে অসহায় বানভাসীদের সাহায্য করতে ছুটে গেলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মানবিক কর্মকাণ্ডে আশ্রয়কেন্দ্রের মানুষজন অভিভূত হয়ে পড়ছেন। কেউবা ঘটনার আকস্মিকতায় হয়েছেন বাকরুদ্ধ।

এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলার প্রবীন সাংবাদিক মোতাব্বির হোসেন বলেন, আমার জীবনে অনেক ইউএনও দেখেছি। উনার মত মানবিক গুনসম্পন্ন ইউএনও দেখিনি। উনার জন্য শুভ কামনা রইল।

এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ রানা অতি বিনয়ীভাবে বলেন, আমি যা করেছি, তা আমি আমার দায়িত্ববোধ থেকেই করেছি। বেশি কিছু করিনি। এর জন্য ধন্যবাদ দিতে হবে না।





Source link

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *